Saturday, March 17, 2018

Payza Account ওপেন করে টাকা ইনকাম করুন ও যাবতীয় কাজে ব্যবহারের কলা-কৌশল,আলোচনা (পর্ব-০২)

আসসাসলামু আলাইকুম। 
আশা করি সবাই ভাল আছেন। শুরু করছি গতকাল Payza আলোচনার আজ শেষ পর্ব। অবশ্য গতকালকের আলোচনাতেই এলার্টপের মুল পর্ব শেষ করেছিলাম। আজ থাকছে বেসিক কিছু কলা-কৌশল। হয়ত আমার ১ম পর্বের লেখা পড়ে অনেকেই এলার্টপে একাউন্ট তৈরির কৌশল রপ্ত করতে পেরেছেন। ফেসবুক ও মেইলে অনেকেই বিভিন্ন কমেন্ট করেছিলেন ও বিভিন্ন অনুপ্রেরনা দিয়েছেন। বেশ ভালই লেগেছে। পরিশেষে ঐ সকল পাঠক/বন্ধুদের কে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। তাহলে আর দেরি কেন? শুরু করা যাক-

অবশ্য যে সকল পাঠকগণ Payza আলোচনার  ১ম পর্ব পড়েন নাই তারা নিচের লিংকটি অনুসরন করতে পারেন-

বর্তমানে Payza কতটা জরুরী তা ব্যবহারকরী মাত্রই অবগত। কেননা, বাংলাদেশে যেহেতু পেপালের কার্যক্রম নাই সেখানে একটু হলেও গুরু দ্বায়িত্ব পালন করছে পেইজা। পেইজা সম্পর্কে নতুন করে বলার কিছু নাই। এই বিষয়ে অসংখ্যক টিউন করা হয়েছে। বিশ্বের প্রায় ৯০ টির বেশী দেশে পেইজা কার্যক্রম আছে, সেই হিসাবে বাংলাদেশে এর আঞ্চলিক অফিস আছে। পেইজা একাউন্ট ক্রিয়েট করা খুব কঠিন কাজ নই। প্রায় ১ মিনিট সময় ব্যয় করেই এই একাউন্ট ওপেন করা যায়।

যাইহোক শুধু একাউন্ট থাকলে হবে না। একউন্টটি অবশ্যই ভেরিফাই হতে হবে। কেননা, ভেরিফাই করা না হলে আপনি পেইজা হইতে আপনার অর্থ ব্যাংকে ডিপোজিত কিংবা উত্তোলন করতে পারবেন না। একাউন্ট ভেরিফাইও খুব একটা কঠিন কাজ নই। 
একাউন্ট ভেরিফাই করতে আপনাকে ২ টি জিনিসের প্রয়োজন যথারুপ ঃ
  • ১। ভোটার আইডি   
  • ২। ব্যাংকের ৬ মাসের স্টেটমেন্ট।

কিভাবে একাউন্ট ভেরিফাই করবেন? (Bank Statement মাধ্যম)

১। প্রথমে আপনার পেইজা একাউন্টে লগইন করুন এখানে > বাম পাশের প্যানেল হতে verification অংশে যান > সেখানে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি এবং অপর অংশে ব্যাংকের স্টেটমেন্ট অাপলোড করে পাঠিয়ে দিলেই হবে।
২। ভেরিফাই হইতে প্রায় ৪-৫ দিনের মত সময় নিবে। এবং এই বিষয়ে আপনার মেইলে বার্তা পাবেন। এবং ভেরিফাই হলে নিম্নোক্ত চিত্র দেখাবে-
Congratulations, your Payza account has been successfully verified.

(বি:দ্র- ভোটার আইডি এবং ব্যাংক স্টেটমেন্ট উভয়ই জিপিজি ফরম্যাটে স্ক্যান করে আপলোড করবেন। এবং আপনার ব্যাংকে গিয়ে একটি স্টেটমেন্ট কপি করে নিন। তাছাড়া ভোটার আইডি ও ঠিকানার সাথে মিল রেখে আপনার পেইজা একাউন্টের নাম, এড্রেস একই হতে হবে। উল্লেখ্য ব্যাংকে আপনার একাউন্টের নাম ভোটার আইডি কার্ডের নামের সাথে মিলতে হবে।

কিভাবে ব্যাংক একাউন্ট ভেরিফাই ও সংযুক্ত করবেন?

শুধু ব্যাংক একাউন্ট সংযুক্ত করলেই হবে না সেটি ভেরিফাই হতে হবে। পেইজা একউন্টে ব্যাংক একাউন্ট যুক্ত না থাকলে আপনার ব্যাংক একউন্ট যুক্ত করে নিন এখনি। এই জন্য Bank Accounts > Add Bank Account অংশে ক্লিক করে আপনার ব্যাংকের যাবতীয় তথ্যাদি দ্বারা পূরন করে নিন।

ব্যাংক একাউন্ট যুক্ত করা হলে আপনার পেইজা একাউন্ট হতে ক্ষুদ্র পরিমান অর্থ (যেমন: ০.১০ কিংবা ০.২৫ ডলার) আপনার ব্যাংক একাউন্টে প্রেরন করা হবে। এই ক্ষেত্রে অাপনার ব্যাংক স্টেটমেন্ট হতে জেনে নিন কত পরিমান অর্থ পেইজা হতে জমা হয়েছে। সুতরাং সেই পরিমানের অর্থ/সংখ্যাটি পরবর্তীতে আপনার পেইজা একউন্টে উল্লেখ করে দিলেই ব্যাংক একাউন্ট ভেরিফাইড হিসাবে সংযুক্ত হয়ে যাবে।

পেইজা হইতে কিভাবে অর্থ ব্যাংক একাউন্টে উইথড্র করবেন?

Wallet > Withdraw Funds অংশে যান > অাপনি কোন অপশনের মাধ্যমে উইথড্র করবেন যেমন-

এখানে টাকা উত্তোলন করার বেশ কয়েকটি অপশন আছে এর মধ্য বহুল প্রচলিত হলো Over the Bank Counter এখানে সরাসরি ব্যাংক কাউন্টার হইতে টাকা উঠাতে শুধুমাত্র ৫০/- খরচ হবে। তবে এটা সব জেলাতে কাজ হবে না। ঢাকাতে কমার্স ব্যাংক এই সুবিধা প্রদান করে থাকে। তাই এই ক্ষেত্রে আপনাকে Bank Transfer অপশনটি বাছাই করতে হবে। সেখানে এমাউন্টের পরিমান/বিবরন লিখে কনফার্ম করলেই ৪/৫ দিনের মধ্যে আপনার ব্যাংক একাউন্টে অর্থ জমা হবে। এই ক্ষেত্রে ২৪০/- সার্ভিস চার্জ কর্তন যাবে। এই ক্ষেত্রে বড় এমাউন্ট লেনদেনের দিক হতে ভাল হয়।


এই যেমন- ৪-৫ দিন পূর্বে আমার একাউন্টে বিভিন্ন সাইট হতে আয়কৃত অর্থ বাংলাদেশী টাকাতে প্রায় ২,০৪৫/- জমা হয় সেখান হতে আমার ইসলামী ব্যাংক একাউন্টে ট্রান্সফার করলে ২৪০/- টাকা বাদ দিয়ে ১,৮০৫/- টাকা জমা হয়েছে।


কাউকে যদি অর্থ ট্রান্সপার করতে চান?

Send Funds অপশনে ক্লিক করতে হবে। নিম্নরুপ চিত্র আসবে-

এখানে যাবতীয় তথ্যাদি যেমন- কাকে প্রেরন করতে চান, কত পেমেন্ট দিতে চান, কারেন্সীর মান কোনটি ইত্যাদি তথ্য পূরন করলেই হবে।

পেজাতে অর্থ যোগ তথা রিফান্ড করতে?

আপনার পেজা একাউন্টে বিভিন্ন মাধ্যমে অর্থ যোগ মানে ডিপোজিত করতে পারবেন। তবে এই ক্ষেত্রে বাংলাদেশী কারেন্সী হিসাবে যোগ হবে। অন্য কোন বিদেশী কারেন্সী যোগ হবেনা। অর্থযোগ করার বর্তমানে সহজতর মাধ্যম হচ্ছে বিকাশ। আপনি বিকাশ একাউন্টের মাধ্যমে এখানে অর্থ ডিপোজিত করতে পারবেন। কিভাবে বিকাশের মাধ্যমে অর্থ/ফান্ড ডিপোজিত করতে হয় তা পরবর্তীতে অন্য কোন পোষ্টে আলোচনা করব।

পেইজা একাউন্টে আমার উইথড্র ও যাবতীয় লেনদেনের প্রমানচিত্র

১।

২।

৩।

টাকা উর্পাজন করুন Payza এর মাধ্যমে

কাজ শুরু করবার পূর্বে একটি কথা! আপনারা হয়ত অনেকে শুনে আশ্চর্য হবেন যে, এলার্ট পে একাউন্ট করার পাশাপাশি অর্থ ইনকামও করা যায়। অর্থা এলার্টপে একাউন্ট আমাদের পকেটে অর্থ গ্রহন করবার সুযোগ করে দিচ্ছে আবার ইনকামের পথ ও বাতলে দিচ্ছে। কি মজাটাই না!! এক ঢিলে ২ পাখি মারা। এই সুযোগটি সবাই ইচ্ছামতো কাজে লাগাতে পারবেন না।-কিছু নিয়ম নীতির ব্যাপার আছে- এখন আমি আপনাদেরকে সেটি বলব। এটি করতে হলে যিনি এলার্টপের বৈধ গ্রাহক তার রেফারেল দিয়ে একাউন্ট তৈরি করতে হবে।অর্থাৎ পেজাতে ঐ গ্রাহককে একাউন্টের মেয়াদ প্রায় ৩ মাসের বেশী হতে হবে।এবং মিনিমাম হলেও একবার অর্থ উত্তলোন করেছেন এমন হতে হবে। তারপর আপনি ঐ রেফারেলে গ্রাহক হলে পরবর্তী আপনার বন্ধু বা পরিচিতদের আপনার রেফারেল দিয়ে কিছুটা ইনকাম করতে পারবেন। এখানে রেফারেল হিসাবে-প্রায় ০.১২ ডলার হিসাবে পাওয়া যায়। আপনি খুব সহজেই Payza এর মাধ্যমে টাকা উর্পাজন করতে পারি।


Payza হল টাকা আদান প্রদানের একটি মাধ্যম ,যার মাধ্যমে টাকা উপার্জন করা যায়। প্রতিটি Referrals একাউন্ট এর জন্য আপনাকে দেওয়া হবে ১০ ডলার । আপনি তিনটি উপায়ে Payza  থেকে টাকা আয় করতে পারেন- 

কিভাবে রেফারেল সংগ্রহ ও শেয়ার করবেন?

আপনার Referrals link পেতে Account > Referrer program এ- যান। ডান পাশের প্যানেল হতে Referral, Link code, Banner code যে কোনটি ব্যবহার করলেই হবে।
Referrals একাউন্ট এর মাধ্যমে টাকা আয় করতে হলে আপনাকে কিছু শর্তপূরন করতে হবে-
  1. Referrals must open an Alert Pay Personal Pro or Business account.
  2. Referrals must transact $250.00 (sending and/or receiving).
  3. After your 10th referral, we will pay you $10.00 USD a referral.
  4. Self-referrals, or referrals from the same IP address, will not be paid out.
  5. আপনার এই Referrals link মাধ্যমে কেউ একাউন্ট করলে আপনি পাবেন ১০ ডলার ।

সারকথা

আজ সম্পূর্ণভাবেই এখানে  শেষ করছি Payza একাউন্টের আলোচনার বিষয়বস্তু। আশা করি আমাদের লেখা ২টি পর্ব সম্পূর্ণ পড়লে অসুবিধা থাকার কথা নই। এখানে আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করেছি বিস্তারিতভাবে প্রতিবেদনটি তৈরি করার, যাতে সকলের পড়তে ও বুঝতে সুবিধা হই। তবুও কেউ ভূলের উর্দ্ধে নই। এই পোষ্টটি বিষয়বস্তু অলংকরন করতে ও সাজাতে আমাদেরকে প্রায় ৪ দিন সময় ব্যয় করতে হয়েছে। এই পোষ্টটি পড়ে কেউ যদি উপকৃত হন তাহলেই মনে করব আমাদের এই লেখার শ্রম ও কৌশল স্বার্থক হয়েছে। অসুবিধা বা প্রশ্ন থাকলে তা কমেন্ট করে জানাবেন। উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব। এর পরেও যদি Payza একাউন্ট সম্পর্কে আরো কিছু তথ্য পাই তাহলে পরবর্তীতে আপডেটেড পোস্ট হিসাবে পাবলিশ করার ইচ্ছা থাকল। পরিশেষে সবার দীর্ঘায়ূ ও সুস্বাস্থ্য কামনা করছি। -আল্লাহ হাফেয-
Previous Post
Next Post

0 comments: Post Yours! Read Comment Policy ▼
লক্ষ্য করুনঃ
পোষ্টের সাথে সম্পৃক্ত নয় এমন কোন কমেন্ট করা যাবে না। কোন কারণ ব্যতীত আপনার ব্লগের লিংক শেয়ার করতে যাবেন না। সবসময় গঠনমূলক মন্তব্য প্রদানের চেষ্টা করবেন। আমরা সবার মতামত সমানভাবে মূল্যায়ন করি এবং যথাসময়ে প্রতি উত্তর দেয়ার চেষ্টা করি।

Post a Comment

 
Copyright © বিডি.পয়সা ক্লিক,নিবন্ধিত ও সংরক্ষিত. মডিফাইঃ পিসি টীম, সার্ভার হোস্টেডঃ গুগল সার্ভিস