Wednesday, March 15, 2017

পেন ড্রাইভের সংজ্ঞা, ইতিহাস, প্রযুক্তি ভার্সন সহ এ টু জেড তথ্যাদি! সাথে আছে পেনড্রাইভের ক্রয় কৌশল ও ব্যান্ড পরিচিতি!!

অাসসালামু আলাইকুম।
 টেকটিউন্স কমিউনীতি সাইটের সবাইকে সালাম ও শুভেচ্ছা। আশা করি কুশলেই আছেন সবাই। মূলত নিজের ব্যস্ততা ও পড়াশোনা জনিত কারনে বিগত ৩-৪ মাসে তেমন একটা টিউন করতে পারিনি। তথাপি সামনে এইচ.এস.সি পরীক্ষা শুরু হতে যাচ্ছে। আমি এবারের রেগুলার পরীক্ষার্থী, পরীক্ষাতে অংশ নিব ইনশাআল্লাহ। সুতরাং বুঝতেই পারছেন। তো এই সম্পর্কে পরে জানাব। আজকের মূল টপিকটি করব পেনড্রাইভ নিয়ে যাহা টিউনের শিরোনম দেখেই বুঝতে পারছেন। এই টিউনের আলোচনাতে থাকবে Pen Drive কি? ইতিহাস ও নকশা গঠনের ইতিহাস, প্রকারভেদ এবং প্রচলিত কোন ব্যান্ডের পেনড্রাইভগুলো ভাল ইত্যাদি.... ইত্যাদি।

পেন ড্রাইভ কি?




সহজে ডাটা বহন করার জন্য পেন ড্রাইভের কোন বিকল্প নাই। এটি অবশ্য ফ্লাশ ড্রাইভ নামেও সকলের কাছে পরিচিত। হাল সময়ে সকলের হাতেই এখন দেখা যাচ্ছে ডাটা বহনের এই ছোট্ট ও সুন্দর প্রযুক্তি পন্যটি। এর দাম প্রতিনিয়ত কমায় ও খুবই সহজলভ্য দামের মধ্য থাকায় তথ্য বহনের মিডিয়ার মধ্য বাজারে এখন এক চেটিয়া রাজত্ব করছে পেন ড্রাইভ। সেই সাথে বাড়তি ধারন ক্ষমতার মধ্য যোগ হয়েছে আকর্ষনীয় স্টাইল, যা আভিজাত্য বৃদ্ধি করেছে অনেকখানি। মূলত ইউএসবি ফ্লাশ ড্রাইভ ফ্লাশ ডাটা স্টোরেজ ডিভাইস এবং ইউএসবি (ইউনিভারসাল সিরিয়াল বাস)ইন্টারফেস এর সমন্বয়ে গঠিত। ইউএসবি ফ্লাশ ড্রাইভ সাধারণত সিস্টেম থেকে বিচ্ছিন্নকরণযোগ্য এবং এতে পুনরায় ডাটা লিখা যায়। এটি বাহ্যিকভাবে ফ্লপি ড্রাইভ থেকে অনেক ছোট অধিকাংশ ইউ এস বি ফ্লাশ ড্রাইভ ওজনে ৩০ গ্রাম এর চেয়ে কম আকার খরচ ঠিক রেখে ২০১০ সালে ২৫৬ গিগা বাইট ধারণক্ষমতা পর্যন্ত ইউ এস বি ফ্লাশ ড্রাইভ তৈরী করা সম্ভব হয়েছে কিছু ইউ এস বি ফ্লাশ ড্রাইভ ১০ বছর পর্যন্ত ডাটা ধরে রাখতে পারে

পেন ড্রাইভ উদ্ভবের ইতিহাস

পেন ড্রাইভের ইতিহাস সুনিদিষ্টভাবে বলা যাবে না। তবে প্রযুক্তি বিদদের ভাষ্যমতে, ট্রেক টেকনোলজি এবং আইবিএম সর্বপ্রথম ইউ এস বি ফ্লাশ ড্রাইভ বাজারে ছাড়ে ২০০০ সালে। ট্রেক টেকনোলজি একটি সিংগাপুরের কম্পানি। ট্রেক টেকনোলজি কর্তৃক প্রথম বাজারজাতকৃত ব্র্যান্ডের নামথাম্বড্রাইভ আইবিএম কর্তৃক বাজারজাতকৃত প্রথম ফ্লাশ ড্রাইভের নাম ছিলডিস্কঅনকি এটি একটি ইসরাইলি কম্পানি এম-সিস্টেমস কর্তৃক উদ্ভাবিত। উত্তর আমেরিকায় ইউ এস বি ফ্লাশ ড্রাইভ লভ্য হয় ২০০০ সালের ১৫ ডিসেম্বর। প্রথমডিস্কঅনকিএর ধারণক্ষমতা ছিল মেগা বাইট। ট্রেক টেকনোলজি এবং নেটাক টেকনোলজি উভয় কম্পানি তাদের কৃতিস্বত্ব ধরে রাখার চেষ্টা করে। যুক্তরাজ্যের একটি আদালত ট্রেক টেকনোলজির কৃতিস্বত্ব বাতিল করে


ফিশন ইলেক্ট্রনিক্স কর্পোরেশন সর্বপ্রথম বিচ্ছিন্নকরণযোগ্য ইউ এস বি ফ্লাশ ড্রাইভ তৈরী করে এবংপেন ড্রাইভনাম প্রচলন করে। আধুনিক ফ্লাশ ড্রাইভে ইউ এস বি . সংযোগ থাকে। ইউ এস বি . সংযোগের সর্বোচ্চ ডাটা স্থানান্তর গতি ৬০ মেগা বাইট/সেকেন্ড। কিন্ত নান্ড ফ্লাশের কিছু সীমাবদ্ধতার কারণে ফ্লাশ ড্রাইভগুলো এত গতিময় নয়। তবে অধিকাংশ ফ্লাশ ড্রাইভের ডাটা পড়ার গতি ২০ মেগা বাইট/সেকেন্ড, এবং ডাটা লিখার গতি ১০ মেগা বাইট/সেকেন্ড

নকশা ও গঠন

ডিভাইসের এক প্রান্ত একটি পুরুষ টাইপ- ইউ এস বি সংযোজক দিয়ে লাগানো থাকে। প্লাস্টিক কেসের ভিতরে একটি ছোট সার্কিট বোর্ড বা বর্তনী মঞ্চ থাকে। বর্তনী মঞ্চে বৈদ্যুতিক যন্ত্রাদি এবং অল্প কিছু তল আরোহিত সমাকলিত বর্তনী (ইন্ট্রিগেটেড সার্কিট) বা আইসি থাকে। সাধারণত এর একটি আইসিতে ইউ এস বি পোর্ট ব্যবহারের ইন্টারফেস বা মাধ্যম থাকে অন্য একটি আইসি মঞ্চস্থিত স্মৃতি চালনা করে এবং অপর আইসিটি হল ফ্লাশ স্মৃতি বা মেমরি



ফ্লাশ ড্রাইভের অভ্যন্তর
ইউএসবিসংযোজক
ইউএসবিব্যাপক ভান্ডার নিয়ন্ত্রক ডিভাইস
পরীক্ষাকারী পিন
ফ্লাশ স্মৃতি
স্ফটিক স্পন্দক
এলডি
লিখন-নিয়ন্ত্রন চাবি
বেদখল জায়গা
ছবিটিwikipedia.org থেকে সংগ্রহীত

অত্যাবশ্যক অংশ

ফ্লাশড্রাইভের চারটি অত্যাবশ্যক অংশ আছে। এগুলো হলঃ

  • পুরুষ টাইপ- ইএ এস বি সংযোজক- কম্পিউটারের সাথে সংযোজন মাধ্যম প্রদান করে
  • ইউ এস বি ব্যাপক ভান্ডার নিয়ন্ত্রক- ইউ এস বি পোষক নিয়ন্ত্রক তৈরী করে। এই নিয়ন্ত্রকে একটি ছোট ক্ষুদ্র-নিয়ন্ত্রক (মাইক্রোকন্ট্রোলার) থাকে যাতে অল্প পরিমাণ চিপস্থিত আর এম এবং আর এম থাকে
  • নান্ড ফ্লাশ স্মৃতি বা মেমরি চিপ- তথ্য সংরক্ষণ করে
  • স্ফটিক স্পন্দক- এটা ডিভাইসে ১২ মেগা হার্টজ স্পন্দন উৎপন্ন করে এবং একটি দশা-আটকানো ঘূর্ণনের মাধ্যমে তথ্য উৎপাদ প্রদান করে
অতিরিক্ত অংশ
একটিফ্লাশ ড্রাইভে আরও থাকতে পারেঃ




  • জাম্পার এবং পরীক্ষাকারী পিন- উৎপাদন বা ক্ষুদ্র-প্রক্রিয়াকারীতে (মাইক্রোপ্রসেসর) কোড বোঝাই করার সময় পরীক্ষা করার জন্য ব্যবহার করা হয়
  • এল ডি- তথ্য লিখা বা পড়ার সময় তা নির্দেশ করে
  • লিখন-নিয়ন্ত্রন চাবি- স্মৃতিভান্ডারে লিখার ক্ষমতা নিয়ন্ত্রন করে
  • বেদখল জায়গা- আরেকটি স্মৃতিভান্ডার চিপের জন্য জায়গা
  • ইউ এস বি সংযোজক আবরণী বা টুপি- ক্ষতির ঝুকি কমায়, ধূলা-বালি অন্যান্ন দূষকের প্রবেশ থামায় এবং ডিভাইসের আকৃতির উন্নয়ন সাধন করে। কিছু ফ্লাশ ড্রাইভে ভিতরে ঢুকানো যায় এরকম ইউ এস বি সংযোজক ব্যবহার করা হয়। কিছু ডিভাইস এমন থাকে যে এর একটি অংশের ভিতরে আরেকটি অংশ ঘুরিয়ে ঢুকিয়ে রাখা যায়
  • বহন সহায়িকা- কেসে বা টুপিতে একটি ছিদ্র থাকে যাতে একটি ফিতা বা শৃঙ্খল লাগানো যায়
  • কিছু ড্রাইভে স্মৃতি কার্ডের সরু ছিদ্র থাকে যাতে এর ধারণ ক্ষমতা বাড়ানো যায়

প্রযুক্তির সাথে ফ্লাশ ড্রাইভের বিভিন্ন ভার্সন অবমুক্ত হয় যথারুপঃ

ইউএসবি ১.০ ১৯৯৬ সালের জানুয়ারিতে এই প্রযুক্তি মুক্তি পায়২০০০ সালের এপ্রিলে এই প্রযুক্তি মুক্তি পায় ইউএসবি ২.০ সিরিজ। এবং সর্বশেষ ইউএসবি ৩.০ ভাসর্ণ মুক্তি পায় ২০০৮ সালের নভেম্বরে। এবং বর্তমানে এটিই প্রচলিত ও আধুনিক আপডেটেড এর ফলে তথ্য আদান প্রদানের সময় কমেছে, বিদ্যুৎ খরচ কমেছেঅবশ্য পরবর্তীতে ইউএসবি ৪.০, ৫.০ সিরিজ আসতে পারে। 

পেন ড্রাইভের ব্যবহার ও পেন ড্রাইভ ক্রয়ের বিবেচ্য বিষয়

সাম্প্রতিক সময়ে ইউএসবি ৩.০ প্রযুক্তির পেন ড্রাইভ বাজারে আসায় তথ্য আদান-প্রদানে এসেছে আমুল পরিবর্তন। বর্তমানে ডিজিটাল দুনিয়ায় ছাত্র বা কর্ম জীবন পেন ড্রাইভ ব্যতিত অসহায়, কেননা Presentation/ Assignment/ Vedio & Audio/ Document যাবতীয় সব কিছুর জন্য পেন ড্রাইভ অপরিহার্য। আর তাই তো কেউবা পেন ড্রাইভ ঝুলিয়ে রাখেন গলায় আবার কেউবা রাখেন সর্বত্র পকেটে। এবার পেন ড্রাইভের কেনার বিষয়ে আসি।


পেন ড্রাইভ কেনার ক্ষেত্রে সর্ব প্রথম এর ডাটা সিকিউরিটির বিষয়টি প্রাধান্য দেয়া উচিত।
  • এছাড়া ডাটা ট্রান্সফার রেট, ডাটা ধারন ক্ষমতা, দীর্ঘস্থায়িত্ব, বিক্রয়োত্তর সেবা, পানি নিরোধী এবং বিদ্যুৎ প্রতিরোধক কিনা এই বিষয়গুলো জেনে নেওয়া উচিত।
  • পেন ড্রাইভের প্রস্তুতকারী দেশ কোনটি তা দেখে নির্ভরযোগ্য ব্রান্ডের পেন ড্রাইভ কেনা উচিত।
  • এবং বিক্রয় পরবর্তী সেবা পেতে হলে ক্রেতাকে অবশ্যই নির্ভরযোগ্য বিক্রয় প্রতিনিধির কাছ হতে পেন ড্রাইভ কিনতে হবে।

বাজারে বিশ্বখ্যাত কিছু ব্রান্ডঃ

বাজারে বিদ্যমান ভাল মানের কিছু বিশ্বখ্যাত ব্রান্ডের পেন ড্রাইভগুলো হল Transcend, Twinmos, Sandisk, A-data, Apacer, Kingstone, HP, PQI, Team, Kingmax, Apogee, Rundisk। এরমধ্য পারফরম্যান্সের দিক হতে সবচেয়ে আমার কাছে ভাল মনে হয়েছে প্রথম ৩টি। উল্লেখ্য বর্তমানে পেন ড্রাইভের মধ্য প্রস্তুতকরন, বিক্রয় সেবার শীর্ষ অবস্থানে আছে Transcend


উপসংহার

আলোচনার একদম শেষ পর্যায়ে। আশা করি এই পোষ্ট পড়ে কিছুটা হলেও অনেকেই উপকৃত হবেন। তারপরেও সমস্যা থাকলে টিউমেন্ট করতে পারেন। আরেকটি বিষয়, আজকেই এটি আমার শেষ প্রকাশনা। অর্থাৎ মে মাসের আগ পর্যন্ত আর কোন টিউন করার ইচ্ছা নাই। পরীক্ষা নিয়েই ব্যস্ত থাকতে হবে। আমি এই বছর কারিগরী শিক্ষাবোর্ডের অধীনে এইচএসসি (ডিল্পোমা ইন কমার্স) পরীক্ষা দিব। অবশ্য অন্য লেখকদের মত আমি কিন্তু আমার কোন টিউনে বায়োডাটা সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু লিখেনি। মূলত লিখবই বা কেমনে? কারন, আমি তেমন কোন ভাল টিউনার নই, আবার ভাল ছাত্রও নই, সেইরকম অভিজ্ঞারও অভাব রয়েছে! এমনিতেই লেখাপড়াতে তেমন মনোযোগী নই, মূলত বোর্ড বই পড়ার থেকে সৃজনশীল বিষয়ে লেখা ও বাইরের কাজ করতে ভাল লাগে। আমি ২০১৪ সালে ব্যবসায় শাখা হতে এস.এস.সি পরীক্ষাতে ৪.১০ জিপিএ অর্জন করি। অতপর ২০১৫ সালে এইচ.এসসিতে ভর্তি হই। রাজশাহীতেই আমার বসবাস। আপনারা আমার জন্য দোয়া রাখবেন যাতে ভালভাবে পরীক্ষা দিতে পারি এবং আমার কাংখিত লক্ষ্য অর্জনে পৌছাতে পারি। আজ এই পর্যন্তই সবাই ভাল খাতুন। আল্লাহ হাফেয-

Previous Post
Next Post

0 comments: Post Yours! Read Comment Policy ▼
লক্ষ্য করুনঃ
পোষ্টের সাথে সম্পৃক্ত নয় এমন কোন কমেন্ট করা যাবে না। কোন কারণ ব্যতীত আপনার ব্লগের লিংক শেয়ার করতে যাবেন না। সবসময় গঠনমূলক মন্তব্য প্রদানের চেষ্টা করবেন। আমরা সবার মতামত সমানভাবে মূল্যায়ন করি এবং যথাসময়ে প্রতি উত্তর দেয়ার চেষ্টা করি।

Post a Comment

 
Copyright © বিডি.পয়সা ক্লিক,নিবন্ধিত ও সংরক্ষিত. মডিফাইঃ পিসি টীম, সার্ভার হোস্টেডঃ গুগল সার্ভিস