Saturday, July 11, 2015

আউল-ফাউল ফ্রি হোস্টিং বাদ দিয়ে নিয়ে নিন সেরা একটি ফ্রি হোস্ট সাইট!! কাজ না হলে কান কেটে ফেলব

সবাইকে সালাম ও শুভেচ্ছা। আশা করি সবাই ভাল আছেন। আজকের পোস্টে আপনাদেরকে পরিচয় করিয়ে নতুন একটি ফ্রি হোস্ট সাইটের। অবশ্য নতুন বলা যাবে না। যারা প্রফেশনাল ব্লগ করেন তাদের কাছে সাইটটি অনেক পূর্বেই পরিচিত বাট নতুনদের কাছে নতুনই বলা যায়। আসলে ব্লগ/ওয়েব সাইটে কাজ করতে হোস্ট সাইটের সি প্যানেল নিয়ে ঘাটাঘাটি করার জন্য প্রথমত অনকেই ফ্রি হোস্ট সাইট বেছে নেন। অতপর কাজ শেখার পর কিংবা সাইটের ভিজিটর বেশী হলে বিভিন্ন পরিস্থিতির কারনে প্রেইড হোস্টিং সাইট গ্রহন করেন। আসলে ফ্রি হোস্টিংয়ের কত যে সাইট আছে তা নির্ধারিতভাবে বলা যাবে না। গুগলে সার্চ দিলে প্রায় ১০০ এর বেশী ফ্রি সাইটের নাম খুজে পাওয়া যাবে। তাছাড়া টিটিতে অনেকেই বিভিন্ন ফ্রি সাইটের সাথে পরিচয় করিয়েছেন।


ব্যক্তিগতভাবে আমার দুটি ব্লগ সাইট রয়েছে- একটি ইংরাজী, অপরটি বাংলা। উভয়ই প্রেইড হোস্টিং রানিং আছে। যাইহোক প্রথমত আপনাদের অনেকের মতই আমি সি প্যানেলে কাজ শিখার জন্য বিভিন্ন ফ্রি হোস্ট সাইট ব্যবহার করেছিলাম। তাছাড়া টিটিতে পোস্ট পড়ে বিভিন্ন ফ্রি হোস্ট সাইটে রেজি: করেছিলাম মূলত হোস্ট সাইটের কাজের পারফরম্যান্স দেখার জন্য। কিন্তু কিছুতেই অর্থাত কোন সাইটেই হোস্ট করে শান্তি পাচ্ছিলাম না। নানান অসুবিধা ছিল যেমন:

১। কোনটির হোস্ট ভাল ছিল, বাট কোন পেইড/ফ্রি ডোমেইন ব্যবহারের সুযোগ ছিলনা।
২। সার্ভার স্পীড অত্যান্ত স্লো ছিল।
৩। পিএইচপি/ডাটাবেজ ফাইলের ব্যবহার সীমাবদ্ধ ছিল।
৪। মূলত ফ্রি হোস্টিং প্রায়ই অফার করে থাকে ১০/২০ জিবি ফ্রি তার সাথে ব্যান্ডউইথ আনলিমিটেড কিংবা ১০০ জিবি। আসলে এই সবই মনগড়া কথা। কেননা, আপনি ফ্রি ইউজার হিসাবে এরা কেন আপনাকে ফ্রি দিবে। তাদেরও সার্ভিস খরচ, রক্ষণাবেক্ষন চার্জ আছে তাইনা!
৫। কারনে-অকারনে আইপি অ্যাড্রেস ব্লক করা, এবং ক্যাচপা পূরন করে ওয়েব সাইটে ভিজিট করা।
৬। অপরদিকে কাষ্টমার কেয়ার সেবা তো থাকবেই না।
৭। আবার কিছু সাইট ভাল হলেও ওয়ার্ডপ্রেস চালাতে থার্ডপার্টি সফওয়্যারের সহায়তা নেওয়া হত। অটো ইন্সটলার কিংবা সফটাক্লাউস ছিলনা।

 

যাইহোক ঐ সকল অসুবিধার কারনে ফ্রি হোস্টিং বাদ দিয়েছিলাম। এবং পেইড হোস্টিং গ্রহন করি। তবে ফ্রি হোস্টিং হিসাবে একটি সাইট নিয়েছিলাম, সেটি খুব কাজের ছিল। কিন্তু তখন কাজের কিছুটা সীমা বদ্ধতা ছিল। গত ০৪ দিন পূর্বে তারা আমাকে একটি বার্তা প্রদান করে। বার্তাটি দেখে তো আমার মুখ হা হয়ে গেল। মানে ফ্রি হোস্টিং হিসাবে একদম ক্লাউড সুবিধা। আবার সাইটটি অন্য সব ফ্রি হোস্টিং সাইট হতে অধিক পপুলার, গুগল/এলেক্সার দিক হতেও ইতিবাচক।
হ্যা বন্ধুরা সেই Free Host এর নাম হচ্ছে- http://byethost.com/


আসুন বাইট হোস্টের সুবিধা এক নজরে দেখে নিই-

১। এটি একটি সম্পূর্ণ বিদেশী হোস্টিং। এরা ফ্রি হোস্ট দেওয়ার পাশাপাশি পেইড ও রিসেলার হোস্টিও দিয়ে থাকে। ২০০৫ সাল হতে কোম্পানিটি ব্যবসা করছে।
২। এদের সার্ভারগুলো সবই ক্লাউড হোস্টিং। অধিকাংশ সার্ভার লোকেশন ইউকে ও আমেরিকাতে। হোস্ট গেটর, হোস্ট পাপা যেখান হতে সার্ভার ব্যবহার করছে। byethost একই জায়গা হতেই ব্যবহার করছে।
৩। যেহেতু Free Host নিয়ে লিখছি, তাই ফ্রি হোস্টিং নিয়েই কথা বলব। এরা পূর্বেও ফ্রি হোস্ট দিত। কিন্তু কাজের সীমাব্ধতা ছিল যেমন- ফ্রি হোস্টিংয়ে শুধুমাত্র এদের সাব ডোমেইন যুক্ত করা যেত। ফলে সাধের কোন ডোমেইন যুক্ত করা যেত না। বর্তমানে তারা পলিসী পরিবর্তন করেছে। এখন এখানে যে সুবিধা পাবেন-
  • 1000 MB (one gigabyte!) Disk Space
  • FTP account and File Manager
  • Control Panel
  • MySQL databases & PHP Support
  • Free tech support
  • Addon domain, Parked Domains, Sub-Domains
  • Free Community Access (Forums)
  • Clustered Servers
  • No ads!
  • https SSL on all free hosting domains. (self signed certificate)

৪। এখানে পেইড ডোমেইন হিসাবে ৫ টি ডোমেইন যোগ করতে পারবেন। তাছাড়া আপনার ডোমেইন পার্ক ডোমেইন করতে পরবেন ফ্রিভাবে।
৫। ১ জিবির সাখে ৫০ জিবি ব্যান্ডউইথ। সার্ভার তো ক্লাউড হোস্টিং। সুতরাং এক দিক হতে বলা যায় অন্য যে কোন ফ্রি শেয়ার্ড হোস্টিং হতে অনেক ভাল হবে।
৬। পূর্বে তাদের প্যানেলে/হোস্টে ওয়ার্ডপ্রেস অআপলোড করতে হলে ডাটাবেজ কিংবা অন্য কোন থার্ডপার্টি ইউটিলিটি সহায়তা নেওয়া হত। কিন্তু বর্তমানে তারা ইউজারদের কথা ভেবে সফটাক্লাউস পদ্ধতি যোগ করেছে । ফলে কয়েকটা ক্লিকের মাধ্যমেই ওয়ার্ডপ্রেস/জুমলা ইনস্টল করতে পারবেন।
৭। প্রতিদিন/সাপ্তাহিক ব্যাকআপের ১০০% নিরাপত্তা আছে। আপনার সাইট কোন স্লো বা ওভার ডাউন করবে না।

কিভাবে Byte Host হতে Free Host গ্রহন করবেন?

১। প্রথমে http://byethost.com/ প্রবেশ করুন> ক্লিক করুন- Free hosting > Click here to sign up for free hosting  > একটি চিত্র আসবে সেখানে সব কিছু ফিলাপ করতে হবে।
২। আপনার মেইলে ২ টি বার্তা যাবে। সুতরাং মেইলটি চেক করুন> একাউন্ট ভেরীফাই লিংকে ক্লিক করুন> অপর একটি বার্তা প্রেরন করবে যেখানে আপনি কিভাবে সি প্যানেলে লগইন করবেন, ইউজার নেম, পাসওয়ার্ড সহ বিভিন্ন তথ্য প্রেরন করবে। সুতরাং উক্ত তথ্যগুলো আপনাকে মনে রাখতে হবে কিংবা কোথাও টুকে রাখূন। মনে করি আপনি সফলভাবে একাউন্ট ক্রিয়েট করতে পেরেছেন।
৩। এবার আপনার সি প্যানেল একাউন্টে লগইন করতে এখানে ক্লিক করুন- http://cpanel.byethost13.com/

আপনার ইউজার আইডি, পাসওয়ার্ড দ্বারা লগইন করুন। অবশ্য এই লিংকটি আপনি বুকমার্ক করে রাখতে পারেন।
সি প্যানেলে লগইন করলে নিচের মত ইন্টারফেস পাবেন।

৪। এবার ওয়ার্ডপ্রেস ইন্টল করতে সফটা ক্লাউসে ক্লিক করে কয়েটা ধাপ অনুসরন করলেই হবে।

কিছু নির্দেশনা-

১। বাইট হোস্ট আপনাকে ফ্রি হোস্ট সাইটের ডেটা/ব্লগ/কন্টেন্ট রিমুভ করবে না। যদি তাদের নীতি মেনে চলেন। যদি পাইরেটেড সাইট/সফট:/অ্যাডাল্ট লিংক সাইট তৈরি করেন তাহলে আপনাকে বন্ধ করে দিবে।
২। ৩ মাসের মধ্যে একাউন্ট লগইন না করলে কিংবা আপনার সাইটটি ভিজিটর ভিজিট না করলে সাইট/একাউন্ট ডিলেট করে দিবে।
৩। ফ্রি হোস্ট হতে পেইড হোস্ট গ্রহন করতে পারবেন। পেমেন্ট ভিসা, মাস্টারকার্ড এর মাধ্যমে দিতে হবে।
৪। পেইড ও ফ্রি হোস্টিংয়ের বেশ কিছু পার্থক্য আছে। যেমন- পেইড হোস্টিংয়ে আপনি যে কোন সাইট তৈরি করতে পারেন, কেউ আপনাকে নিষেধ করবে না। কারন, আপনি মূল্য দিয়ে কাজ করছেন। So, হ্যাকিং ব্যতিত কোন ফাইল ডিলেট বা সাইট মুভ করতে পারবে না। সুতরাং পেইড কোম্পানীগুলো ক্লায়েন্ট এর নিকট দায়বদ্ধ/প্রতিজ্ঞবদ্ধ থাকে। যে কারনে পেইড হোস্টিং সাইটে 30 days Money back guaranty এর কথা উল্লেখ থাকে। After All, এই কথা চিরন্তন সত্য যে, সাইট পপুলারিটি, নিরাপত্তা এবং ভিজিটরদের স্বার্থের কথা ভেবে অবশ্যই আপনাকে দেশী-বিদেশী হোক পেইড হোস্টিং নিতে হবে। বিশ্বের যাদের ব্যবসায়ী ব্লগ/ওয়েব সাইট আছে, সেগুলো সবই পেইড হোস্টিংয়ে পরিচালিত হচ্ছে। যাইহোক এখানে যে সাইটটির পরিচয় দিলাম তা শুধুমাত্র ফ্রি হোস্ট ব্যবহার, কাজ শেখা ও টিউটোরিয়াল কাজের জন্য, So, অনেকের কাছে ভাল লাগবে।
আশা করি, ফ্রি হোস্টিং সাইটে  বাকি কাজ গুলো নিজে করতে পারবেন। তবে এতটুকু নিশ্চয়তা দেওয়া যায় যে, অন্য যে কোন ফ্রি হোস্টিং থেকে বাইট হোস্ট আপনাকে নতুন/বাড়তি প্রেরনা দিবে। এবং এখানে কাজের মজাটাই আলাদা। তার কারন হল-আপনি ফ্রি হোস্টিং হিসাবে ক্লাউড সার্ভার হোস্টিং ব্যবহার করছেন। যেখানে বাংলাদেশী হিসাবে আপনাকে মাসে প্রায় ৬.০ ডলার অর্থ গুণতে হত। তবে দেশে যারা হোস্টিং ব্যবহার করছি সেটি হচ্ছে শেয়ার্ড হোস্টিং। যাইহোক বাইট হোস্ট ব্যবহার করলে আপনাকে অন্য কোন ফ্রি হোস্টিংয়ে যাবার প্রয়োজন নাই। সুতরাং যারা অন্য কোন ফ্রি হোস্টিংয়ে সমস্যা নিয়ে তারা ঐ সকল হোস্টিংকে Goodbye  জানিয়ে আজই Byte host গ্রহন করে C Panel এর কাজ এবং Blog করা শিখুন। কারন, অফারটি সীমিত সময়ের জন্য!
Previous Post
Next Post

0 comments: Post Yours! Read Comment Policy ▼
লক্ষ্য করুনঃ
পোষ্টের সাথে সম্পৃক্ত নয় এমন কোন কমেন্ট করা যাবে না। কোন কারণ ব্যতীত আপনার ব্লগের লিংক শেয়ার করতে যাবেন না। সবসময় গঠনমূলক মন্তব্য প্রদানের চেষ্টা করবেন। আমরা সবার মতামত সমানভাবে মূল্যায়ন করি এবং যথাসময়ে প্রতি উত্তর দেয়ার চেষ্টা করি।

Post a Comment

 
Copyright © বিডি.পয়সা ক্লিক,নিবন্ধিত ও সংরক্ষিত. মডিফাইঃ পিসি টীম, সার্ভার হোস্টেডঃ গুগল সার্ভিস