Friday, July 3, 2015

এসো ব্লগার শিখি এবং ব্লগারের সাজসজ্জা (কিভাবে ব্লগে গেজেট কাষ্টমাইজেশন এবং সুন্দর সুন্দর গ্যাজেট যোগ করবেন)-৩য় পর্ব !!

এসো ব্লগার শিখি এবং ব্লগারের সাজসজ্জা [পর্ব-০১] :: পরিচিতি, ব্লগ তৈরি করা সহ অনেক কিছু!
এসো ব্লগার শিখি এবং ব্লগারের সাজসজ্জা [পর্ব-০২] :: কিভাবে ব্লগে গ্যাজেট কাষ্টমাইজেশন এবং সুন্দর সুন্দর গ্যাজেট যোগ করবেন!
সবাইকে সালাম ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি ব্লগার টিউটোরিয়াল ৩য় পর্বের পোস্ট। আজকের বিষয় হচ্ছে কিভাবে আপনার ব্লগে সুন্দর সুন্দর গ্যাজেট যোগ করবেন এবং গ্যাজেট নিয়ে কাজ করবেন। 

তবে প্রথমে জেনে নিই গ্যাজেট কি?

গ্যাজেট হচ্ছে এমন একটি বিষয়- যেখানে ব্লগে JavaScript/HTML এর কোডিং যুক্ত করে কোন একটি বিষয়ের রুপ দেওয়া হয়। উদাহরন হিসাবে বলা যায় যারা ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে সৌন্দর্যর জন্য উইগেট নিয়ে কাজ করেন, ঠিক উইগেটের অনুরুপ বিষয় হচ্ছে ব্লগার গ্যাজেট। প্রথমেই বলেছি একটি ব্লগার সাইটের থীমের পাশাপাশি গ্যাজেটকে কেন্দ্র করেন একটি সাইট সফল তথা সৌন্দর্যতে পরিপূর্ণতা দেয়। এখানে এর মূল চারুকৌশল। ব্লগার সাইটে কোথায় গ্যাজেট ব্যবহার হচ্ছে তার প্রিভিউ দেখতে আমাদের ব্লগার সাইটে প্রবেশ করুন-

১। প্রথমে ব্লগার সাইটে লগইন করুন> বাম পাশের ড্যাশবোর্ড হতে লেআউটে ক্লিক করুন তাহলে আপনার সাইটের নিম্নরুপ এন্টারফেস আসবে।
২।সেখানে Add the Gagazte অথবা একটি গ্যাজেটযুক্ত করুন বাটনে ক্লিক করুন> এবার যে গ্যাজেটটি যুক্ত করতে চান তার পাশের (+)চিহৃ বাটনে ক্লিক করুন।

৩। যেহেতু আমরা একটি কাষ্টম গ্যাজেট যুক্ত করব HTML/Java Script এ-ক্লিক করব > তাহলে নিম্নরুপ একটি বক্স আসবে।

৪। এবার সেখানে আপনার কাংখিত কোডটি পেস্ট করে কোন নাম দ্বারা সেভ করুন > এবার সাইটটি প্রভিউ করলে আপনার গ্যাজেটটি ভিটিটরদের নিকট শো করবে।
সুতরাং আপনি আপনার সাইটে যতগুলো গ্যাজেট যোগ করতে তা হুবহু একই পদ্ধতিতে করতে হবে।
আশা করি এবার নিজেই নিজের সাইজে গ্যাজেট নিয়ে কাজ করতে পারবেন।
গ্যাগেজ নিয়ে কাজ করার কিছু সাবধানতা:


গ্যাজেট নিয়ে একটি সাইটকে যে রকম সাজানো যায়,আবার বিপত্তিও কম নই। কেননা, আপনি যদি আপনার সাইটে অযথা বেশী গ্যাজেট ব্যবহার করেন তাহলে সাইট স্লো হয়ে যাবে।আবার এমন কিছু গ্যাজেট আছে যেখানে ভিজিটরদের বিঘ্ন সৃষ্টি করে। তাছাড়া কোন গ্যাজেটে ম্যালেসিয়াস ক্ষতিকর কোডিং লেখা থাকে তাহলে তা সাইটের জন্য ক্ষতিকর। সুতরাং এই দিকে নজর রাখতে হবে। তবে গ্যাজেটের বিকল্প হিসাবে অনেকেই HTML টেমপ্লেটে গিয়ে সেখানে HTML কোডিং সংযোজন কিংবা বিয়োজন করে এই কাজটি করে থাকেন। তবে এই পদ্ধতিটাই সর্বত্তম। কেননা, এরুপ পদ্ধতিতে কাজ করলে সাইট ধীরগতি হবার সম্ভাবনা থাকেনা। তবে এই বিষয়ে (HTML) প্রচুর অভিজ্ঞতা থাকতে হয়। এখানে একটু উল্টা-পাল্টা হলেই সাইটটি বিফলে চলে যাবে। তবে যারা নতুন তাদের HTML এডিটিং না করে সহজ-সরলভাবে গ্যাজেট পদ্ধতি ব্যবহার করাটাই ভালো। উদাহরন স্বরুপ- আমাদের বর্নচূড়া ব্লগ সাইটে যে গ্যাজেট গুলো দেখছেন তার বেশীর ভাগই HTML টেমপ্লেট এডিট করে করা হয়েছে। এমনিতে ব্লগার সাইট ওপেন হতে প্রায় ১.৩০ মিনিটের মত সময় নেয়। এর কারন হলো- এটি গুগল সার্ভার হতে ট্রান্সপার হয়ে বিভিন্ন ডাটাবেজে রান করতে একটু বেশী সময় নেই। সাধারনভাবে ব্লগার সাইটের কাজ করতে বা ওপেন করতে গেল সর্বনিম্ন ইন্টারনেট গতি ২৩০ কে.বি.পি.এস থাকতে হবে।
তাহলে বন্ধুরা আজ এই পর্যন্ত। পরবর্তী পোস্টে কথা হবে। সেই পর্যন্ত সবাই ভাল থাকুন, আপনার পাশের মানুষটিকে ভালবাসুন, এবং টিটির সাথেই থাকুন। -আল্লাহ্ হাফেয-
Previous Post
Next Post

1 comments: Post Yours! Read Comment Policy ▼
লক্ষ্য করুনঃ
পোষ্টের সাথে সম্পৃক্ত নয় এমন কোন কমেন্ট করা যাবে না। কোন কারণ ব্যতীত আপনার ব্লগের লিংক শেয়ার করতে যাবেন না। সবসময় গঠনমূলক মন্তব্য প্রদানের চেষ্টা করবেন। আমরা সবার মতামত সমানভাবে মূল্যায়ন করি এবং যথাসময়ে প্রতি উত্তর দেয়ার চেষ্টা করি।

  1. আমি আশা করছি যে,আপনি অতি সত্বর এই কথাগুলো বই আকারে বেৱ করুন যাতে আমৱা ডাউনলোড করতে পারি৷

    ReplyDelete

 
Copyright © বিডি.পয়সা ক্লিক,নিবন্ধিত ও সংরক্ষিত. মডিফাইঃ পিসি টীম, সার্ভার হোস্টেডঃ গুগল সার্ভিস